তাজা খবর:

কাটাতারের বেড়াটা ছুঁতে দিলো না মাকে....                    নড়াইল-২ আসনে আ`লীগের প্রার্থী মাশরাফি-বিন-মর্তুজার কর্মী সমাবেশ                    সিরাজদিখানে দর্জীর লাশ উদ্ধার, পুলিশ বলছে হত্যাকান্ড                    পাবনায় ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে কিশোর খুন                    হারুন হত্যার ৫৭ দিন পর মামলা রেকর্ড করলো পুলিশ                    রংপুরে জামায়াতের গোপন বৈঠক, আমীরসহ গ্রেফতার ৮                    অহনা হত্যাকান্ডের লোমহর্ষক বর্ণনা দিল চাচাতো বোন                    কালীগঞ্জের মাহবুবুর রহমান দম্পতির একসঙ্গে ৪ সন্তান লাভ                    বাঘায় রনির পুকুরে পেলো বিরল প্রজাতির মাছ                    প্রেমের টানে যুক্তরাষ্ট্রের যুবতী ছুটে আসলেন বরিশাল                    
  • সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

নড়াইলে ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদক অস্ত্রসহ আটক

নড়াইলে ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদক অস্ত্রসহ আটক

নড়াইল জেলা ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলামকে (২৮) ওয়ানশুটার গান ও দুই রাউন্ড

দুর্গাপুরে জামায়তের দুই ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

দুর্গাপুরে জামায়তের দুই ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

রাজশাহী দুর্গাপুরে দুই জামায়াতের ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্গাপুর থানা পুলিশ। শুক্রবার গভীর

নীলফামারীতে ২ জামায়াত নেতা আটক

নীলফামারীতে ২ জামায়াত নেতা আটক

নীলফামারী সদর উপজেলার চওড়া বড়গাছা ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর মাওলানা মমতাজুল ইসলাম ও বাইতুলমাল

রাজাপুরে পুলিশবাহী বাস দুর্ঘটনায় নারী পুলিশসহ আহত ২০ !

রাজাপুরে পুলিশবাহী বাস দুর্ঘটনায় নারী পুলিশসহ আহত ২০ !

ঝালকাঠির রাজাপুরে বিএমপি পুলিশ বহনকারী বাস দুর্ঘটনায় নারী পুলিশসহ ২০ পুলিশ সদস্য আহত

কবির সুমন বড্ড নারী বিরোধী : তসলিমা

এফএনএস ডেস্ক

14 Nov 2014   04:38:34 PM   Friday BdST
A- A A+ Print this E-mail this
 কবির সুমন বড্ড নারী বিরোধী : তসলিমা
তসলিমা নাসরিন-কবির সুমন

ভারতের শিল্পী ও সাবেক সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে মিথ্যে প্রতিশ্রুতির অভিযোগ এনে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন তসলিমা নাসরিন।
তসলিমা তার ফেসবুক পেজে শুক্রবার লিখেছেন- ‘আমার দীর্ঘদিনের বন্ধু ভাস্কর সেন নিয়ে এসেছিলেন কবির সুমন চট্টোপাধ্যায়কে আমার কাছে। তখন ২০০০ সাল। সে রাতে সবাইকে নিয়ে আহেলিতে গিয়েছিলাম বাঙালি খাবার খেতে। অনেকক্ষণ গল্প হয়েছিল সুমনের সঙ্গে। সুমন বলেছিলেন, তিনি হিন্দুদের ভিড়ে মুসলমান হতে আর মুসলমানের ভিড়ে হিন্দু হতে পছন্দ করেন। এভাবেই তিনি তার সেক্যুলারিজমের লড়াই করেন। বলেছিলাম, এখানে হিন্দু ওখানে মুসলমান হওয়ার দরকার কী, সবখানে মানববাদী হলেই তো হয়! আমি যেমন! হিন্দু আর মুসলমানের বিরুদ্ধে যা কিছু বৈষম্য, মানববাদী হিসেবে আমি তার প্রতিবাদ করি! শেষ পর্যন্ত দেখলাম, সুমনের পদ্ধতিটাই সুমনের পছন্দ। যাবার সময় সুমন বলেছিলেন, সেক্যুলারিজমের কসম, এই কলকাতায় আপনার নিরাপত্তার জন্য আমি যা কিছু করার করব।
কী যে মিথ্যে ছিল সেই প্রমিজ! এর কিছুকাল পরেই সুমন, তখন কবীর সুমন, নিজেই ফতোয়া দিলেন আমার বিরুদ্ধে। টিভিতে আমার দ্বিখণ্ডিত বইটি মেলে ধরে মুহম্মদ সম্পর্কে কোথায় কী লিখেছি তা শুধু পড়ে শুনিয়ে শান্ত হননি, বইয়ের কোন পৃষ্ঠায় কী আছে, তাও বলে দিয়েছেন এবং এও বলেছেন আমার বিরুদ্ধে মৌলবাদীদের জারি করা ফতোয়াকে তিনি সমর্থন করেন। এমনিতে নব্য-মুসলিমদের সম্পর্কে বলাই হয় যে তারা মৌলবাদীদের চেয়েও দু’কাঠি বেশি মৌলবাদী। সত্যি কথা বলতে কী, মৌলবাদীদের অত ভয়ঙ্কর ফতোয়াকেও আমি অত বেশি ভয়ঙ্কর মনে করিনি, যত করেছি সুমনের ফতোয়াকে।
বারবারই সুমন বলেছেন, তার পয়গম্বর সম্পর্কে আমি জঘন্য কথা লিখেছি, আমার শাস্তি প্রাপ্য। যে সুমনকে এতকাল নাস্তিক বলেই আমরা জানতাম, গানও লিখেছেন ভগবানকে কটাক্ষ করে, তিনি কি না সমর্থন করছেন কলকাতার রাস্তায় মঞ্চ তৈরি করে ফতোয়াবাজ মৌলবাদীরা আমার যে মাথার মূল্য ঘোষণা করেছে, সেটি! সে রাতে ভয়ে আমার বুক কেঁপেছে। সে রাতেই আমি প্রথম জানালা দরজাগুলো ভালো করে লাগানো হয়েছে কিনা তা পরখ করে শুয়েছি। সে রাতে আমি সারারাত ঘুমোতে পারিনি। মৌলবাদীরা কোনোদিনই স্পষ্ট করে বলতে পারেনি ইসলাম সম্পর্কে কোথায় আমি ঠিক কী লিখেছি, প্রমাণ দেখাতে পারেনি আমার ইসলাম-নিন্দার। কিন্তু সুমন আমার বই হাতে নিয়ে ক্যামেরার সামনে বসেছেন। পড়েছেন সেই সব লেখা।
দর্শককে বলেছেন, বিশ্বাস না হয় আপনারই পড়ুন, দেখুন কী লিখেছে। ক্যামেরা দ্বিখণ্ডিত বইয়ের সেইসব পৃষ্ঠায়। যে কেউ, যে কোনো জঙ্গি মুসলমান সে রাতে ভাবতে পারত, মরি তো মরব, তসলিমাকে মেরে মরব। আমি থাকতাম মুসলিম অধ্যুষিত পার্ক সার্কাসের কাছেই রওডন স্ট্রিটে। আমার বিরুদ্ধে এই ঘৃণ্য কাজটা কিন্তু কোনো মৌলবাদী করেনি, করেছে সাংস্কৃতিক জগতের নামিদামি প্রগতিশীল বলে খ্যাত এক শিল্পী। অবিশ্বাস্য লাগে সবকিছু। কেমন যেন শ্বাসকষ্ট হতে থাকে। যেন সুস্থ স্নিগ্ধ খোলা হাওয়া নেই আর কোথাও।
শুরু থেকেই সুমন আমার বই নিষেধাজ্ঞার পক্ষে। কলকাতা হাইকোর্ট আমার বইটির ওপর থেকে এক সময় নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছিল। এটি মুক্তচিন্তার মানুষদের কাছে সুখবর হলেও সুমনের কাছে সুখবর ছিল না। কলকাতা বইমেলাতেও মুসলিম মৌলবাদীদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের পক্ষ নিয়ে আমার পাঠকদের গালিগালাজ করেছেন সুমন। কেউ কেউ বলে, ওদের কাছ থেকে নানান সুযোগ সুবিধে পান তিনি। আমি জানি না কী সেই সুযোগ সুবিধে যার জন্য তিনি বাকস্বাধীনতার বিপক্ষে যান, মুসলিম সন্ত্রাসীদের পক্ষে তর্ক করেন। আমার বিশ্বাস হয় না সুমন সত্যিই মুহম্মদকে পয়গম্বর মানেন বা ইসলামে সত্যিই বিশ্বাস করেন। যখন যেটা তার প্রয়োজন, সেটায় বিশ্বাস করেন। বামপন্থীদের বিরুদ্ধে গান বেঁধেছেন, যখন ডানপন্থীদের আশ্রয় তার দরকার। মুসলিম মৌলবাদীদের সব সরকারই পেন্নাম করে। সুতরাং ওই মৌলবাদী দলে ভিড়লে তার লাভ বৈ ক্ষতি হবে না, সম্ভবত জানতেন।
সুমনের গানের কথাগুলো খুব ভালো। সে সব কথা বাংলার লক্ষ মানুষ বিশ্বাস করলেও সুমন বিশ্বাস করেন না। তিনি বামপন্থায় বিশ্বাস করেও ডানপন্থী রাজনীতিতে ঢুকেছেন নিতান্তই স্বার্থের জন্য। গানে উদারতার কথা বললেও নিজে তিনি অত্যন্ত হিংসুক, ক্ষুদ্র মনের।
সুমন বলেছেন তিনি পলিগ্যামাস লোক। বহুনারীর সঙ্গে সম্পর্ক তার। সে থাক, কিন্তু তিনি যে বড্ড নারীবিরোধী লোক। তার জার্মান বউ মারিয়াকে তিনি শুধু মানসিকভাবে নয়, শারীরিকভাবেও নির্যাতন করতেন। মারিয়া মামলা করেছিলেন সুমনের বিরুদ্ধে। পুলিশ সুমনকে গ্রেফতার করেছিল ১৯৯৯ সালে। বধূনির্যাতন মামলায় সহজে কেউ জামিন পায় না, কিন্তু সুমন পেয়েছিলেন। ক্ষমতার লোকেরা তাকে জামিন পেতে সাহায্য করেছিলেন। মারিয়ার ফ্ল্যাট, জিনিসপত্র এ সব কিন্তু সুমন ফেরত দেননি। মারিয়া শেষ পর্যন্ত সুমনকে ডিভোর্স দিয়ে খালি হাতে জার্মানিতে ফেরত যেতে বাধ্য হয়েছিলেন।
পশ্চিমবঙ্গে তার জনপ্রিয়তা খানিকটা কমতে শুরু করলে তিনি ২০০০ সাল থেকে ঘন ঘন বাংলাদেশে যেতে থাকেন। বাংলাদেশে জনপ্রিয় হতে গেলে শুধু রুদ্রর গান গাইলেই চলে না, ভীষণ রকম তসলিমা বিরোধী হতে হয়, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় আর সমরেশ মজুমদারের মতো এই তথ্যটি সুমনও জেনেছিলেন। আর, হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণ করলে তো সোনায় সোহাগা।
এই সেদিন বর্ধমানে মুসলিম মৌলবাদীদের বোমা হামলার পরিকল্পনা ধরা পড়ার পর সুমন একে বিজেপির কীর্তি বলেছেন, মুসলিম মৌলবাদীদের আশ্রয়দাত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সুদৃষ্টি পাওয়ার আশায়। ক্ষমতার বড় লোভ সুমনের। টাকা পয়সারও লোভ প্রচণ্ড। অথচ কী ভীষণ আদর্শবাদী লোক বলে ভাবতাম মানুষটাকে। এখনও অবশ্য প্রচুর লোককে বোকা বানিয়ে চলছেন। অভিনয় ভালো জানেন বলে এটি সম্ভব হচ্ছে।’

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
 
A- A A+ Print this E-mail this
আপনার পছন্দের এলাকার সংবাদ
পড়তে চাই:
Fairnews24.com, starting the journey from 2010, one of the most read bangla daily online newspaper worldwide. Fairnews24.com has the highest journalist among all the Bangladeshi newspapers. Fairnews24.com also has news service and providing hourly news to the highest number of online and print edition news media. Daily more then 1, 00,000 readers read Fairnews24.com online news. Fairnews24.com is considered to be the most influencing news service brand of Bangladesh. The online portal of Fairnews24.com (www.fairnews24.com) brings latest bangla news online on the go.
৪৮/১, উত্তর কমলাপুর, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
ফোন : +৮৮ ০২ ৯৩৩৫৭৬৪
E-mail: info@fns24.com
fnsbangla@gmail.com
Maintained by : fns24.net