fairnews24 Logo

প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের প্রধান করনিকের বিরুদ্ধে দুর্র্ণীতির অভিযোগ

এফএনএস (এস.এম. রেজাউল করিম; ঝালকাঠি) | 19 Apr 2018   07:17:40 PM   Thursday
 প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের প্রধান করনিকের বিরুদ্ধে দুর্র্ণীতির অভিযোগ

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের প্রধান করনিক (হেড ক্লার্ক) কবির হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অগনিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিয়মনীতির কোনো তোয়াক্কা না করেন ঘুষ বাণিজ্যে চালিয়েই যাচ্ছে তিনি। প্রাথমিক শিক্ষকদের বদলি থেকে শুরু করে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে গাইড বই বিক্রিসহ বিভিন্ন কাজে তার লাগামহীন অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ এখন শিক্ষক ও সাধারণ মানুষের মুখে মুখে। উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-কর্মচারী আজ তার কাছে জিম্মি হয়ে রয়েছে। চাহিদা মতো ঘুষ না পেলে তিনি এসব ফাইলে হাত না লাগিয়ে নানা আইন কানুন দেখিয়ে শিক্ষকদের হয়রানি করেন। আর টাকা পেলেই মুচকি হেসে সবকিছুই করেন তিনি। এছাড়াও বিভিন্ন সময় ক্ষুদ্র মেরামত ও সংস্কার, ফুটবল টুর্নামেন্ট, আন্তঃপ্রাথমিক  ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, স্কুল কন্টিজেন্সি, স্কুলের জন্য বরাদ্দকৃত টাকার ভুয়া বিল-ভাউচার দেখিয়ে টাকা আত্মসাৎ করার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে কবির হোসেনের বিরুদ্ধে। সরকারের বরাদ্দকৃত প্রকল্পের কাজ শতভাগ নিশ্চিত করলেও উৎকোচ ছাড়া কোনো প্রতিষ্ঠানের বিল ভাউচারের স্বাক্ষর করেননা তিনি। শিক্ষকদের ধোঁকা দিয়ে নানা কায়দায় মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেন বলে তার সঙ্গে শিক্ষকদের দ্বন্দ সর্বত্রই বিরাজ করছে চাপা ক্ষোভ। নাম প্রকাশ না করার শর্তে শিক্ষকরা জানান, মাসের ১ তারিখে বেতন পাওয়ার কথা থাকলেও ৪-৫ তারিখের আগে হচ্ছে না। অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের পেনশন ও গ্র্যাচুয়েটি বিলের জন্য অফিসে ধরনা দিতে হচ্ছে মাসের পর মাস। মাতৃত্বকালীন ছুটি, আন্তঃজেলা বদলি, এক প্রতিষ্ঠান থেকে অন্য প্রতিষ্ঠানে বদলি, চাকরিরত অবস্থায় উচ্চশিক্ষার জন্য ভর্তির অনুমতির জন্য উৎকোচ না দিলে তাদেরকে চরম হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত।
 চলতি বছর ২৮ ফেব্রুয়ারী বুধবার রাজাপুরে দুর্নীতি দমন কমিশন সাধারণ মানুষের কাছ থেকে সরাসরি দুর্নীতির অভিযোগ শোনার জন্য যে গণশুনানীর আয়োজন করেন সেখানে উপজেলার মধ্য কানুদাসকাঠী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ লুৎফর রহমান খান সহ ৪ জন শিক্ষক ঐ শিক্ষা অফিসের প্রধান সহকারী মোঃ কবির হোসেনের বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ দাখিল করেন। দুদকের কমিশনার ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদের উপস্থিতিতে জেলা প্রশাসক হামিদুল হকের সঞ্চালনায় গণশুনানীতে অভিযোগ তোলা হয়। গন শুনানীতে দুদক কমিশনার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ব্যাবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দিলেও এই অভিযোগকারীরা তাদের অভিযোগের কোন সমাধান আজও পাননি।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত কবির হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ অস্বিকার করে জানান, কিছু লোক অন্যায় ভাবে সুযোগ নিতে না পারায় আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা খান মোহম্মদ আলমগীরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জেলা শিক্ষা অফিসে উভয় পক্ষ উপস্থিত পূর্বক শীঘ্রই পূনরায় গনশুনানী অনুষ্ঠিত হবে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কপিরাইট © 2018-11-17 এফএনএস২৪.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত।