তাজা খবর:

বোচাগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় দুই স্কুলছাত্রী নিহত                    বালিয়াকান্দিতে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ৩, আহত ৮                    নকলায় পূজাঁ মন্ডব পরিদর্শন করলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী                    পদ্মা সেতুর রেলসংযোগ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ করেন প্রধানমন্ত্রী                    খুনিদের সঙ্গে জাতীয় ঐক্য জনগণ মানবেনা: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী                    বিএনপি-জামাতের বাংলাদেশে রাজনীতি করার কোন সুযোগ নেই: হানিফ                    ১২বরিশাল সিটির নয়টি কেন্দ্রে পূর্ণভোট গ্রহণ শনিবার                    জঙ্গী ও সন্ত্রাসীদের এই বাংলার মাটিতে স্থান নাই: পলক                    প্রধানমন্ত্রী মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর কাজ পরিদর্শ করবেন রোববার                    ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করতে দেবে না সরকার: এলজিআরডি মন্ত্রী                    
  • রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫

বাঁশবাগানে ফেলে যাওয়া বৃদ্ধা মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন স্বরাষ্

বাঁশবাগানে ফেলে যাওয়া বৃদ্ধা মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন স্বরাষ্

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার কুচিয়াবাড়ি গ্রামে বাঁশবাগানে ফেলে যাওয়া অসহায় বৃদ্ধা মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব

কালীগঞ্জের তৈলকূপী গ্রামের ঐতিহাসিক শিব মন্দির

কালীগঞ্জের তৈলকূপী গ্রামের ঐতিহাসিক শিব মন্দির

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার জামাল ইউনিয়নের তৈলকূপী গ্রামে বেগবতী নদীর তীরে অযতœ আর অবহেলাই

কলেজ ছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা মামলার দুই আসামী গ্রেপ্তার

কলেজ ছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা মামলার দুই আসামী গ্রেপ্তার

পাবনার সাঁথিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হকের মেয়ে ও সরকারী এডওয়ার্ড কলেজের দর্শন বিভাগের ছাত্রী

অর্থাভাবে বিনাচিকিৎসায় জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে স্কুল ছাত্রী ইতি

অর্থাভাবে বিনাচিকিৎসায় জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে স্কুল ছাত্রী ইতি

অর্থাভাবে বিনাচিকিৎসায় জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে বেঁচে থাকার জন্য ছটফট করতে থাকা মেধাবী স্কুল

ভয়াবহ ভাঙ্গনের কবলে ও জকিগঞ্জ পৌর এলাকা সদর ইউনিয়ন

এফএনএস (আব্দুল্লাহ আল মামুন; জকিগঞ্জ, সিলেট) :

30 Dec 2017   01:46:27 PM   Saturday BdST
A- A A+ Print this E-mail this
 ভয়াবহ ভাঙ্গনের কবলে ও জকিগঞ্জ পৌর এলাকা সদর ইউনিয়ন

কুশিয়ারা নদী তীরবর্তী জকিগঞ্জ বাজার ভাঙ্গণে ক্রমেই ছোট হচ্ছে। স্বাধীনতার পরে বিভিন্ন সময়ে ভাঙ্গনে জকিগঞ্জ পৌরসভার জকিগঞ্জ বাজারের একাংশ ইতোমধ্যে নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। বর্তমানে ঐতিহ্যবাহী জকিগঞ্জ বাজার, কেছরী, মাইজকান্দি, ছয়লেন, পীরেরচক রয়েছে ভাঙ্গনের মারাতœক ঝুঁকিতে। একই অবস্থা জকিগঞ্জ সদর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামেরও। ভাঙ্গন নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন জকিগঞ্জ পৌর এলাকা ও জকিগঞ্জ সদর ইউনিয়নের শস্যকুঁিড়,ছবড়িয়া, মানিকপুর, রারাই, বাকরশালসহ অন্যান্য গ্রামবাসী।
ভাঙ্গন কবলিত এলাকার সচেতন জনগন ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভাঙ্গন প্রতিরোধে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করছেন। সম্প্রতি গঠিত হয়েছে ‘ নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে আমরা জকিগঞ্জবাসী’ নামে একটি সামাজিক সংগঠন। সংগঠনের সদস্যরা ২৫ ডিসেম্বর জকিগঞ্জ সফররত অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীর সাথে দেখা করে নদী ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান। দাবী আদায়ের লক্ষ্যে ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন নজরুলের নেতৃত্বে তারা মন্ত্রীর হাতে একটি স্মারকলিপিও তুলে দেন।একই দাবীতে ২৭ ডিসেম্বর জকিগঞ্জ বাজারের এমএ হক চত্বরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। যা প্রিন্ট  ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রচারিত হয়। ‘নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে আমরা জকিগঞ্জবাসী’ সংগঠনের আহ্বায়ক এমএজি বাবর ও সদস্য সচিব আফতাব আহমদ জানান, জকিগঞ্জ পৌরসভার জকিগঞ্জ বাজারটি অত্যন্ত ঝুঁকিতে রয়েছে। জকিগঞ্জ বাজারের পুরাতন লঞ্চঘাট, কেছরী গ্রামের ময়জু মিয়া, ছয়লেন গ্রামের কালন মিয়া, মাইজকান্দি গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের বাড়ি বর্তমানে ঝুঁিকেতে রয়েছে। এসব এলাকার একাংশ ইতোমধ্যে নদীতে বিলীন রয়েছে। জকিগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ছবরিয়া গ্রামের ইছহাক মিয়া, শষ্যকুঁিড় গ্রামের ফয়েজ আহমদ শাহীন, বাকরশাল গ্রামের মাসুক আহমদ, মানিকপুর গ্রামের জালাল আহমদ, রারাই গ্রামের খয়ের মিয়ার বাড়ি অত্যন্ত ঝুঁকিতে রয়েছে। এর মধ্যে ডিসেম্বরের প্রথম দিকে রারাই গ্রামের খয়ের মিয়ার বসতঘরের রান্নার চুলাসহ একাংশ নদীতে বিলীন হয়েছে। ইতঃপূর্বে বসতভিটা হারানোর কষ্টে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ছবড়িয়া গ্রামের ইছহাক আলী। নদীগর্ভে বসত বাড়ি বিলীন হবার দুই মাসের মধ্যে তিনি মারা গেছেন। ছবড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,থানা বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শষ্যকুঁড়ি গ্রামের একটি মসজিদ, একটি কবর স্থান, ফসলের জমি, বসতঘর, গাছপালা, বাঁশঝাড়সহ অনেক কিছই হারিয়ে গেছে নদীতে। অনেকে নদীর সাথে লড়াই করে বার বার বসতভিটা পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছেন। কেউ কেউ হয়েছেন উদ্বাস্তু। নদী ভাঙ্গনের বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, পৌরসভার মেয়র, জকিগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বিভিন্ন ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সদস্যবৃন্দ নানাভাবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন। দুর্ভোগের শিকার এলাকাবাসী জানান, নদী ভাঙ্গন সীমান্ত এলাকার প্রধান সমস্যা। বিষয়টি নিয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্তা ব্যক্তিদের কাছে সময়ে সময়ে ধর্ণা দিয়েও কোনো প্রতিকার পাননি এলাকাবাসী। বর্ষা মৌসুমে সাময়িক মেরামতের নামে দৌড়ঝাপ করে স্থায়ী পদক্ষেপের কথা বললে প্রয়োজনীয় বরাদ্ধের অভাবে কাজ করতে না পারার কথা জানায় তারা। নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরাও দৃশ্যমান কার্যকর কোনো ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হওয়ায় হতাশ এলাকাবাসী। কেছরী গ্রামের ময়জু মিয়া বলেন, দফাফ দফায় রাক্ষুসী নদী কুশিয়ারার থাবায় আমার বাড়ির একাংশ নদীতে বিলীন হয়েছে। অসহায় ও আতঙ্কে রয়েছি বাড়ির বাকী অংশটুকু নদীতে কখন চলে যায়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
 
A- A A+ Print this E-mail this
আপনার পছন্দের এলাকার সংবাদ
পড়তে চাই:
Fairnews24.com, starting the journey from 2010, one of the most read bangla daily online newspaper worldwide. Fairnews24.com has the highest journalist among all the Bangladeshi newspapers. Fairnews24.com also has news service and providing hourly news to the highest number of online and print edition news media. Daily more then 1, 00,000 readers read Fairnews24.com online news. Fairnews24.com is considered to be the most influencing news service brand of Bangladesh. The online portal of Fairnews24.com (www.fairnews24.com) brings latest bangla news online on the go.
৪৮/১, উত্তর কমলাপুর, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
ফোন : +৮৮ ০২ ৯৩৩৫৭৬৪
E-mail: info@fns24.com
fnsbangla@gmail.com
Maintained by : fns24.net